পঙ্খীমুড়োতে ঘরবাড়ি ভাঙচুর ও সাজেকে পিসিপি নেতা আটকের প্রতিবাদে

খাগড়াছড়িতে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদে বিক্ষোভ

সংখ্যালঘু জাতিসত্তাসমূহের ভূমি বেদখলের ষড়যন্ত্র বন্ধসহ পিসিপি নেতা রূপায়ন চাকমার মুক্তি দাবি

0
209

খাগড়াছড়ি ।। পাহাড় ও সমতলে কথিত উন্নয়নের নামে সংখ্যালঘু জাতিসত্তাসমূহের ভূমি বেদখলের ষড়যন্ত্র বন্ধসহ সাজেকের মাচলং বাজারে সেনাবাহিনী কর্তৃক সমাবেশে হামলা চালিয়ে আটককৃত পিসিপি নেতা রূপায়ন চাকমাকে অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানিয়েছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি)।

আজ বৃহস্পতিবার (১৭ জুন ২০২১) দুপুর ১২ টায় খাগড়াছড়ি সদর এলাকায় পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা শাখার উদ্যোগে এক বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা এই দাবি জানান।

সেনাবাহিনী কর্তৃক সিন্দুকছড়ির পঙ্খীমুড়োতে সনেরঞ্জন ত্রিপুরার ঘর ভাংচুর ও সাজেকে পিসিপি নেতাকে অন্যায়ভাবে আটকের প্রতিবাদে এই বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করা হয়। মিছিল পরবর্তী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অমল ত্রিপুরা ও খাগড়াছড়ি জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক নরেশ ত্রিপুরা।

বক্তরা অভিযোগ করে বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে কথিত উন্নয়ন পর্যটন ও হোটেল নির্মাণের নামে প্রতিনিয়ত সংখ্যালঘু জাতিসত্তাসমূহের ভূমি বেদখল ও তাদেরকে নিজ বাস্তুভিটা থেকে উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র করা  হচ্ছে। গত ১২ জুন খাগড়াছড়ির সিন্দুকছড়ি ইউনিয়নের পঙ্খীমুড়ো নামক স্থানে সেনাবাহিনী কর্তৃক সনেরঞ্জন ত্রিপুরার নির্মিত ঘর ভাঙচুর ও তার জায়গা বেদখল করা হয়েছে। বান্দবোন চিম্বুক পাহাড়ে ম্রো জাতিসত্তার জনগণকে নিজেদের জমি ও বসতভিটা থেকে উচ্ছেদের লক্ষ্যে সেখানে পাঁচ তারকা হোটল ও বিনোদন পার্ক নির্মান করা হচ্ছে। সমতলে সীতাকুণ্ড সোনাইছড়িতে আবুল খায়ের গ্রুপ কর্তৃক ত্রিপুরা স¤প্রদায়কে উচ্ছেদ করার তৎপরতা ও টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার টেলকী গ্রামে সংখ্যালঘু জাতিসত্তাসমূহের শশ্মানের ভূমিতে বনবিভাগ কর্তৃক আরবোরেটাম প্রকল্পের নামে দেয়াল ও গেস্ট হাউজ নির্মাণের মাধ্যমে ভূমি বেদখল অব্যাহত রেখেছে। নিজেদের বাস্তুভিটা রক্ষার্থে এসব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গেলে দেশের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা আন্দোলনকর্মীদের আটক করে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে থাকে।

বক্তরা আরো অভিযোগ করে বলেন, গত ১৫ জুন পঙ্খীমুড়োতে সেনা কর্তৃক ঘর ভাংচুর ও ভূমি বেদখল ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সাজেকের মাচলং বাজারে এলাকাবাসীরা বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করলে সেনাবাহিনী কর্তৃক সমাবেশে হামলা চালিয়ে সেখান থেকে পিসিপি’র সাজেক থানা শাখার সভাপতি রুপায়ন চাকমাকে আটক ও ব্যাপক শারিরীক নির্যাতন করা হয়। পরে তাকে মিথ্যাভাবে এক হত্যার মামলা আসামী করে বাঘাইছড়ি থানায় হস্তান্তর করা হয়। এরপর পুলিশ তাকে রাাঙামাটি আদালতে প্রেরণ করলে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করে। অথচ সেই হত্যা মামলার এজাহারে রুপায়ন চাকমার কোন নাম ছিল না। সম্পূর্ণ মিথ্যা ও সাজানো মামলায় তাকে ফাঁসানো হয়েছে। এর আগে একই ঘটনার প্রতিবাদে গুইমারা এলাকাবাসীর বিক্ষোভ সমাবেশেও সেনাবাহিনী হামলা চালিয়েছিল।

বক্তারা সেনাবাহিনী কর্তৃক সিন্দুকছড়ির পক্ষীমুড়োতে সনে রঞ্জন ত্রিপুরার ঘর ভাঙচুর, গুইমারা বিক্ষোভ সমাবেশে হামলা ও সাজেক মাচলং সমাবেশে হামলা চালিয়ে পিসিপি নেতা রুপায়ন চাকমাকে আটকের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

সমাবেশ থেকে বক্তারা পাহাড় ও সমতলে কথিত উন্নয়নের নামে সংখ্যালঘু জাতিসত্তাসমূহের ভূমি বেদখলের ষড়যন্ত্র বন্ধসহ অবিলম্বে পিসিপি নেতা রূপায়ন চাকমার নামে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারপূর্বক তাকে নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান।

পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক টনক চাকমা স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.