খাগড়াছড়িতে পুলিশ কর্তৃক পাঁচ সংগঠনের বৈসাবি উৎসব বর্জনের আহ্বান সম্বলিত পোস্টার ছিড়ে দেয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ইউপিডিএফ

0
1
ইউনাইটেড পিপল্স ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএপ)-এর কেন্দ্রীয় সদস্য ও খাগড়াছড়ি জেলা সমন্বয়ক উজ্জ্বল স্মৃতি চাকমা আজ ৬ এপ্রিল সংবাদ মাধ্যমকে দেয়া এক বিবৃতিতে খাগড়াছড়িতে পুলিশ কর্তৃক পাঁচ সংগঠনের বেসাবি উৎসব বর্জনের আহ্বান সম্বলিত পোস্টার ছিড়ে দেয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘লাশ ও কান্নার ভিড়ে উৎসব করে যে, নিপীড়িত জনতার শত্রু সে’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সাজেক ও খাগড়াছড়িতে হামলা, খুন, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে এবং দায়ি ব্যক্তিদের শাস্তির দাবিতে বৈসাবি (বৈসুক, সাংগ্রাই, বিজু) উৎসব বর্জন করুন এই আহ্বানে সাজেক ভূমি রক্ষা কমিটি, সাজেক নারী সমাজ, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও হিল উইমেন্স ফেডাশেন এই পাঁচ সংগঠন যৌথভাবে এ পোস্টারটি প্রচার করে। আজ দুপুর আনুমানিক ২:১৫টার সময় খাগড়াছড়ি সদর থানা থেকে একদল পুলিশ পিকআপ ভ্যানে এসে কোন কথাবার্তা ছাড়া খাগড়াছড়ি জেলা সদরের বিভিন্ন স্থানে টাঙানো পোস্টারটি ছিড়ে দেয়।
বিবৃতিতে তিনি খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসন চরম অগণতান্ত্রিক আচরণ শুরু করেছে উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশের সংবিধান প্রত্রেক নাগরিকের স্বাধীনভাবে মত প্রকাশের অধিকার দিয়েছে। একটি গণতান্ত্রিক দেশে পুলিশ কর্র্তক পোস্টার ছিড়ে দেয়ার মতো ন্যাক্কারজনক কাজ করে প্রশাসন আইনের আওতায় থেকেও বেআইনী ও অগণতান্ত্রিক কাজ করছে। প্রশাসনের এ ধরনের অগণতান্ত্রিক আচরণ কিছুতেই কাম্য নয়। এ ধরনের অগণতান্ত্রিক আচরণের মাধ্যমে প্রশাসন জনগণের স্বাধীন মত প্রকাশের ক্ষমতা কেড়ে নেয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে।
বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন, সাজেক ও খাগড়াছড়িতে হামলার পর হাজার হাজার মানুষ এখনো বন বাদাড়ে ও খোলা আকাশের নীচে মানবেতর দিন যাপন করতেবাধ্য হচ্ছেন। হামলাকারীদের এখনো পর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়নি ও কোন তদন্ত কমিটিও গঠন করা হায়নি। সর্বত্র পাহাড়ি জনগণের মধ্যে এখনো অনিশ্চয়তা ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। এ অবস্থায় উৎসব করার মতো কোন পরিবেশ নেই। ইতিমধ্যে খাগড়াছড়িতে ১৫ট সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগন, নাগরিক সমাজ ও কার্বারী এসোসিয়েশন বৈসাবি উৎসব বর্জনের আহ্বানের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করে বিবৃতি প্রদান করেছে। এমতাবস্থায় প্রশাসন বিভিন্ন প্রলোভন, হুমকি দেয়ার মাধ্যমে জনগণকে উৎসব পালনে বাধ্য করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে বিবৃতিতে তিনি অভিযোগ করেন।
বিবৃতিতে তিনি অবিলম্বে পোস্টার ছিড়ে দেয়ার সাথে জড়িত পুলিশ সদস্যদের শাস্তি, খাগড়াছড়িতে সভা-সমাবেশসহ স্বাধীন মত প্রকাশের ওপর আরোপিত বিধি নিষেধ প্রত্যাহারের মাধ্যমে সুষ্ঠু গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টি করা এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম সমস্যার রাজনৈতিক সমাধানের উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানান।
হিল উইমেন্স ফেডারেশন-এর খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি রিকু চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি রেমিন চাকমা ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আপ্রুসি মারমা এক যৌথ বিবৃতিতে পুলিশ কর্তৃক পাঁচ সংগঠনের বৈসাবি উৎসব বর্জনের আহ্বানে প্রচারিত পোস্টার পুলিশ কর্তৃক ছিড়ে দেয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.