দুই বছরেও আমার প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষণের ন্যায়বিচার পাইনি- মানবাধিকার কমিশনের গণশুনানিতে পুষ্প রাণি চাকমা

0
2

রাঙামাটি প্রতিনিধি, সিএইচটি নিউজ
বুধবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২৩

মানবাধিকার কমিশনের গণশুনানিতে প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনার বর্ণনা ও বিচার দাবি করছেন পুষ্প রাণি চাকমা।

খাগড়াছড়ি জেলা সদরের বলপিয়ে আদামের বাসিন্দা পুষ্পরাণি চাকমা। ২০২০ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর রাতে তার বাড়িতে ৯ জন বাঙালি প্রবেশ করে ব্যাপক ডাকাতি ও তার প্রতিবন্ধী মেয়েকে গণধর্ষণ করে।

আজ বুধবার (১৮ জানুয়ারি ২০২৩) দুপুরে রাঙামাটিতে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের আয়োজিত গণশুনানীতে উপস্থিত হয়ে পুষ্প রাণি চাকমা সেদিনের ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা দেন এবং ২ বছরেও উক্ত ঘটনার সুষ্ঠু প্রতিকার ও ন্যায়বিচার পাননি বলে অভিযোগ করেন। রাঙামাটি সাংস্কৃতিক ইন্সটিটিউট হলরুমে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. কামাল উদ্দিন আহমেদের উপস্থিতিতে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

গণশুনানিতে তিনি সেদিনের ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বলেন, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ রাত ২টার দিকে আমার ঘরে ডাকাতি হয়। ৯ জন বাঙালি লোক শাবল দিয়ে বাড়ির দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে আমার স্বর্ণালঙ্কার, টাকা, মোবাইল ফোনসহ সবকিছু লুট করার পর আমার মেয়েকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। আমি এখনো এর সুষ্ঠু প্রতিকার পাইনি।

মানবাধিকার কমিশনের গণশুনানি অনুষ্ঠান, সাংস্কৃতিক ইন্সটিটিউট, রাঙামাটি।

তিনি আরো বলেন, সেদিন ধর্ষণের শিকার হয়ে আমার মেয়ে একেবারে মরার মতো অবস্থা। হাত, পা, চোখ বাঁধা ছিল। ধর্ষণের পর ভোর ৪টার সময় দুর্বৃত্তরা চলে যায়। তখন আমি একেবারে বিমর্ষ হয়ে পড়ি। মোবাইল ফোন হাতে না থাকাই কাউক্ওে জানাতে পারিনি। পরে বাইরে পায়চারি করা এক পথচারীকে ডেকে এনে ঘটনাটি বলি এবং থানায় ফোন করে ঘটনাটি জানালে খবর পেয়ে পুলিশ ও সাংবাদিকরা বাসায় চলে আসে।

নিরাপত্তাহীনতার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, আমার মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনার পর থেকে এখনো পর্যন্ত আমি শান্তিতে ঘুমাতে পারি না। বাইরের কথা বাদ নিজের বাসায় পর্যন্ত আমাদের নিরাপত্তা নেই। এটা কি চলছে বাংলাদেশে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমি ২ বছরেও এখনো এ ঘটনার সুষ্ঠু প্রতিকার ও ন্যায়বিচার পাইনি। এখনো পর্যন্ত আমার যে ৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কারসহ জিনিসপত্র লুট হয়েছে সেগুলো ফেরত পাইনি। পুলিশ তদন্তের পর মালামাল উদ্ধার হওয়ার কথা জানালেও এখনো সেগুলোর কোন হদিস নেই। তিনি মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যানের কাছে এর সুষ্ঠু প্রতিকার ও ন্যায়বিচার দাবি করেন।

এ বিষয়ে কমিশনের চেয়ারম্যান ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, পুষ্প রাণি চাকমার কথা আমরা শুনেছি। এ ঘটনা আমাদের কাছেও যথেষ্ট কষ্ট লেগেছে। এ ধরনের ঘটনা হয়তো  আরো আছে। সেগুলোরও প্রতিকার একান্তই হওয়া দরকার। যদি কারোর এ ধরনের ঘটনা থেকে থাকে, কোন ধরনের প্রতিকার পাচ্ছেন না তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে জানাবেন। এ বিষয়ে আমরা প্রতিকারের সর্বাত্মক চেষ্টা করবো।

*ভিডিও:


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।


সিএইচটি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.