স্বাধীন পার্বত্য রাজ্যকে ‘জেলায়’ রূপান্তর দিবসে মহালছড়িতে আলোচনা সভা

0
101

মহালছড়ি প্রতিনিধি ।। ১৮৬০ সালের ০১ আগস্ট ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসকরা স্বাধীন পার্বত্য রাজ্যকে ”জেলায়” রূপান্তরের মাধ্যমে শাসন কায়েম করে এ অঞ্চলের নামকরণ করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বা Chittagong Hill Tracts.

এই দিনটিকে উপলক্ষ করে আজ ০১ আগস্ট ২০২১, রবিবার খ মহালছড়িতে ”সরকারি ভাষ্যই ইতিহাস নয়, পার্বত্য চট্টগ্রামে ঔপনিবেশিক শাসন (১৮৬০- ১৯৪৭) শোষন-বঞ্চনা ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে জনগনের অব্যহত সংগ্রাম” এই শ্লোগানে চিন্তাশীল ব্যক্তিবর্গের উদ্যোগে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভায় মহালছড়ির বিভিন্ন এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, কার্বারী, যুব সমাজের প্রতিনিধি, ছাত্র/ছাত্রী’র প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বক্তারা বলেন, শাসকশ্রেণী নিজ প্রয়োজনে বা নিজ স্বার্থে পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রকৃত ইতিহাস ধামাচাপা দিয়ে রেখেছে। দেশের সাধারণ মানুষদের আমাদের পার্বত্য চট্টগ্রামের ইতিহাস জানতে দেয়নি। স্কুল-কলেজে পাহাড়ের ব্যাপারে কোন কথায় লেখা নেই। শুধু মাত্র মুক্তিযুদ্ধ ’৭১, ৫২’র ভাষা আন্দোলনের কথা তারা পাঠ্যপুস্তকে লিপিবদ্ধ করেছে। কিন্তু তারও বহু আগে পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়িরা প্রবল পরাক্রমশালী ব্রিটিশ শক্তির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছে এবং ব্রিটিশদের তাদের দাবি মানতে বাধ্য করেছে– এ বিরাট ঘটনা কোন পাঠ্য বইয়ে লেখা নেই। এতেই শাসকশ্রেণীর আসল মতলব ফুটে উঠে।

তারা বলেন, শাসকশ্রেণী তাদের মতো বিকৃত করে ইতিহাস সাজিয়ে সেগুলো ইতিহাস বলে তাদের দলিল পত্রে লিখে রাখে। তাদের সাজানো বিকৃত ইতিহাসগুলো প্রকৃত ইতিহাস বলে চালিয়ে দিচ্ছে। সেরকম বিকৃত ইতিহাস পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণ ইতিহাস বলে স্বীকৃতি দেবে না।

বক্তারা আরো বলেন, ইতিহাসের আজকের এই দিনে স্বাধীন পার্বত্য রাজ্যকে জেলায় রুপান্তর করে তখনকার শাসকশ্রেণী ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসকরা স্বাধীন এ ভূ-খণ্ডটিকে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাম দিয়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে নিজ সাম্রাজ্যভুক্ত করে নেয়। তবে তৎকালীন রাজা শের দৌলত খাঁ, সেনাপতি রণু খাঁ, যুবরাজ জান বক্স খাঁ সহ আরো কয়েকজন ঔপনিবেশিক শক্তির সাথে দীর্ঘ দু’যুগেরও বেশি গৌরবজ্জল প্রতিরোধ লড়াইয়ের ইতিহাস রয়েছে। তেজস্বিনী রাজ মহীয়সী চাকমা রাণী কালিন্দী রাণীর ( ১৮৩২ – ১৮৭৩) জীবদ্দশায় ঔপনিবেশিক শাসকদের অন্যায় হস্তক্ষেপ মেনে নেননি। অথচ আমরা বর্তমান প্রজন্ম সে সব ইতিহাস জানি না বা জানার চেষ্টাও করি না। তাই আমাদের দরকার আমাদের পার্বত্য চট্টগ্রামের সঠিক ইতিহাস সঠিকভাবে অনুসন্ধান করে আগামী প্রজন্মের জন্য সঠিক ইতিহাস রচনা করা।


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.